কম টাকায় উৎপাদনমুখী ব্যবসা করার আইডিয়া

কম টাকায় উৎপাদনমুখী ব্যবসা করার আইডিয়া

কম টাকায় উৎপাদনমুখী ব্যবসা করার আইডিয়া। আপনি কি অল্প পুঁজিতে লাভ জনক ব্যবসা করতে চান? তাহলে মনে রাখুন যে কম টাকায় ব্যবসা করার অনেক আইডিয়া আমাদের কাছে রয়েছে। আজ অনেকেই এই ক্ষুদ্র ব্যবসার ধারণা নিয়ে ব্যবসা করে নিজের জীবন চলাচ্ছেন। ছোট ব্যবসা আমরা ওগুলিকে কম পুঁজির প্রয়োজন হয়।

অল্প পুজিতে পাইকারি ব্যবসা

অবশই মনে রাখবেন যে, কম টাকায় শুরু করা ছোট ব্যবসা সব সময়ই ছোট থাকবে না। আপনার ছোট ব্যবসা একদিন বড় ব্যবসা হয়ে উঠতেই পারে। তার জন্য আপনার নিজের কাজ করার ইচ্ছা থাকতে হবে। তাহলে আপনি নিজের ব্যবসা কে বড় করতে পারবেন।

অনলাইনে blogging ব্যবসা

যদি ঘরে বসে অনলাইনে blogging ব্যবসা করতে চান তাহলে blogging বিজনেস আপনার জন্য অনেক ভালো একটি বিজনেস হতে পারে। লক্ষ লক্ষ মানুষ একটি ব্লগ সাইট বানিয়ে নিজের ঘরে বসে কাজ করে টাকা ইনকাম করছে।

৫০০০ টাকায় কি ব্যবসা করা যায়

তবে টাকা আয় করাটা বড় কথা না। আপনি যদি blogging এর মাধ্যমে ঘরে বসে অনলাইন আয় করতে চান। আর, যদি আপনার ব্লগ মানুষের ভালো লাগে এবং ব্লগ টি যদি success হয়ে যায়, তাহলে আপনি ভাবতেও পারবেননা যে কতটা ইনকাম আপনার হবে।আসলে, ব্লগ থেকে আয় করাটা অনেক সোজা যদি আপনি তাকে ভালোকোরে করতে পারেন।

মোবাইল রিচার্জের ব্যবসা

আপনি যদি অনেক কম টাকায় ব্যবসা করার কথা ভাবেন তাহলে একটি ছোট্ট মোবাইল রিচার্জ দোকান দিতে পারেন। সব মানুষের হাথে হাতে মোবাইল আছে এবং তারা দোকানে গিয়ে রিচার্জ করে। তাই, আপনি কম পুঁজিতে এবং অনেক ছোট দোকান নিয়ে শুরু করতে পারেন। আপনার মোবাইল রিচার্জের দোকান দিতে কেবল ১০ থেকে ১৫ হাজার খরচ হতে পারে।

অল্প পুজিতে লাভজনক ব্যবসা বাংলাদেশ

আপনি সব কোম্পানির রিচার্জ কার্ড রাখার সাথে সাথে prepaid এবং postpaid sim রিপ্লেস এর কাজ করতে পারেন। এতে আপনার extra ইনকাম হবে। postpaid বিল জমা করতে পারেন। মোবাইলের cover, head phone এবং মোবাইলের কিছু মাল পত্র নিজের দোকানে রাখতে পারেন। যখন আপনার দোকান থেকে ইনকাম হওয়া শুরু হবে তখন ছোট খাটো কিছূ মোবাইল এবং আরো অনন্য মাল পত্র দোকানে রাখা শুরু করবেন।

আরো দেখুনঃ সার্টিফিকেট হারিয়ে গেলে তোলার নিয়ম

আপনি অনলাইনে বা অফলাইনে পোশাক বিক্রি করতে পারেন। অল্প পুঁজিতে ব্যবসার আইডিয়া হিসেবে পোশাক বিক্রি অবশ্যই একটি ভাল কাজ। আপনার যদি সামর্থ্য থাকে তাহলে একটি দোকান নিতে পারেন। আজ অসংখ্য মানুষ অনলাইনে তাদের পণ্য বিক্রি করছে। অনলাইনে পোশাক বিক্রি করার জন্য ফেসবুকে একটি পেইজ থাকলে যথেষ্ট।

চাকরির পাশাপাশি কি ব্যবসা করা যায়

তবে আপনার যদি একটি ওয়েবসাইট থাকে তাহলে সেটি আপনার পোশাকের বিক্রি বাড়াতে সাহায্য করতে পারে। আবার আপনি ইচ্ছা করলে বিভিন্ন দোকানে পাইকারি রেটে জামাকাপড় ডেলিভারির কাজ করতে পারেন। এজন্য আপনাকে বিভিন্ন দোকানের মালিকদের সাথে ভাল সম্পর্ক গড়ে তুলতে হবে। তাহলেই আপনি সফল।

পন্য ডেলিভারি ব্যবসা

বর্তমান অনলাইনে কেনাকাটার পরিমাণ দিন দিন বাড়ছে। অসংখ্য প্রতিষ্ঠান এখন অনলাইনে তাদের পণ্য বিক্রয় করছে। বিশেষ করে ই-কমার্স ব্যবসা কয়েক গুণ বেড়ে গেছে। তবে ই-কমার্স ব্যবসায়ীদের অন্যতম সমস্যা হচ্ছে পণ্য ডেলিভারি সমস্যা। এজন্য পণ্য ডেলিভারি ব্যবসা দিন দিন বাড়ছে।

যদি আপনার পুঁজি কম থাকে তাহলে আপনি ছোট পরিসরে এই ব্যবসা শুরু করতে পারেন। কয়েকজন কর্মী নিয়ে একটি নির্দিষ্ট এলাকার মধ্যে পণ্য ডেলিভারি দেওয়ার কাজ করতে পারেন। কম টাকায় পণ্য ডেলিভারি চার্জ রাখবেন তাহলে সহজেই গ্রাহক ধরে রাখতে পারবেন। তারপর ধীরে ধীরে কর্মীর সংখ্যা বাড়িয়ে আপনার ব্যবসার পরিধি বৃদ্ধি করবেন।

ফুচকার দোকানে ব্যবসা

বর্তমান ফুচকা খেতে পছন্দ করে না এমন মানুষ পাওয়া কঠিন। তবে কম বেশি সবাই ফুচকা পছন্দ করে। ফুচকার ব্যবসাটি কিন্তু কফি শপের মত একটি স্মার্ট ব্যবসা। শিক্ষিত তরুণরা যারা অন্য ব্যবসা করতে লজ্জা বোধ করে তারা একটি ছোট দোকান নিয়ে ফুচকার ব্যবসা শুরু করতে পারেন।

ঘরে বসে অল্প পুঁজিতে ব্যবসা

তবে এই ব্যবসা করার জন্য আপনাকে স্থায়ী দোকান নিতে হবে না। আপনি ভ্রাম্যমাণ দোকান নিয়ে এই ব্যবসা শুরু করতে পারেন। ভ্রাম্যমাণ দোকান এমন ভাবে সাজাবেন যা মানুষের নজর কাড়ে। আর আপনার ফুচকার যদি স্বাদ অন্যদের তুলনায় একটু ভিন্ন হয় তাহলে আপনার গ্রাহকের সংখ্যাও দিন দিন বেড়ে যাবে। কম টাকায় উৎপাদনমুখী ব্যবসা করার আইডিয়া

ফুল বিক্রির ব্যবসা

আপনি জানেন বাংলাদেশে ফুলের একটি বড় বাজার আছে। ফুল চাষিদের কেন্দ্রীয় প্লাটফর্ম বাংলাদেশ ফ্লাওয়ার সোসাইটির তথ্য মতে, বাংলাদেশে এক হাজার ছয়শ কোটি টাকার এক বিশাল ফুলের বাজার গড়ে উঠেছে। যেমনঃ ভালবাসা দিবস, আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস, বাঙ্গালির বিভিন্ন উৎসবে ফুলের চাহিদা ব্যাপক ভাবে বেড়ে গেছে।

তা ছাড়া সারা বছর ফুলের অনেক চাহিদা থাকে। ফুলের ব্যবসা খুব অল্প টাকার মধ্যে শুরু করা যায়। একটি দোকান নিবেন আর কিছু ফুল কিনে দোকানে সাজিয়ে রাখবেন। ফুলের ব্যবসায় লাভের পরিমাণও অনেক বেশি। এটা আপনার জন্য একটি ভালো আইডিয়া হতে পারে।

অনলাইনে শিক্ষকতা করা

অনলাইনে শিক্ষকতা করে আপনার পছন্দের বিষয়টি শিখিয়ে ঘরে বসেই ভাল রকমের আয় করা সম্ভব। বিষয়টি হতে পারে পড়াশোনা, বাদ্যযন্ত্র বা ভাষা শিক্ষা আরো অনন্য। আপনার দক্ষতা ও আগ্রহের ভিত্তিতে নির্ধারণ করুন কোন বিষয় কাজ করবেন।একটি নিজের ইউটিউব চ্যানেল খুলে বিনা বিনিয়োগেই আয় করতে পারবেন। রয়েছে অনলাইন শিক্ষকতার বিভিন্ন পোর্টাল, ও এডুকেশনাল সেন্টার যেখানে নাম ভুক্ত করে সহজেই শুরু করতে পারবেন শিক্ষকতা।

বিভিন্ন এডুকেশনাল প্ল্যাটফর্মে কোর্স আপলোড করেও শুরু করতে পারেন আপনার ব্যবসা। গনিত, বিজ্ঞান, ভাষা শিক্ষার পাশাপাশি আঁকা, প্রোগ্রামিং, বাদ্যযন্ত্র বাজানো, মার্কেটিং ও ফটোগ্রাফি ইত্যাদি ব্যবসা। যে কোন বিষয়ে কোর্স আপলোড করার সুযোগ রয়েছে এই ধরণের প্ল্যাটফর্মে। টেক্সট, ভিডিও, অডিও বা প্রেজেন্টেশনের আকারে আপলোড করতে পারেন কোর্স গুলো।

রান্না করা খাবার হোম ডেলিভারি

বর্তমান ব্যস্ততার যুগে বাড়িতে রান্না করার সুযোগ হয় না অনেকের, আবার প্রতিদিন হোটেলের খাবারও খেতে চান না বেশির ভাগ মানুষ। তাই এই চাহিদা মেটাতে শুরু করতে পারেন খাবারের হোম ডেলিভারির ব্যবসা। নিজের বাড়িতে রান্না করে পৌঁছে দিন বাড়ি বাড়ি। সল্প সময়ে সুস্বাদু খাবার দিতে পারলে এখন আর ব্যবসার অভাব হয় না। কম টাকায় উৎপাদনমুখী ব্যবসা করার আইডিয়া

আপনি কলেজ বিশ্ববিদ্যালয় সংলগ্ন অঞ্চলে ব্যবসার সুযোগ বেশি থাকে। শহরের বাইরে থেকে পড়তে আসা ছাত্র ছাত্রীরা অনেকেই রোজ রান্না করতে চান না। সে ক্ষেত্রে তাঁরা নির্ভর করেন হোম ডেলিভারির ওপর। এছাড়া অনেক ছোট পরিবারও রোজ খাবারের জন্য হোম ডেলিভারির খাবারের ওপর নির্ভর করে থাকেন। কম বিনিয়োগে ৫ থেকে ১০ হাজার টাকায় শুরু করুন এই ছোট ব্যবসা।

কম টাকায় দর্জির ব্যবসা

১০ হাজার টাকায় শুরু ব্যবসা করতে হলে ভাবতে পারেন দর্জির দোকানের ব্যবসার কথা। তবে সে ক্ষেত্রে আপনার অবশ্যই উপযুক্ত দক্ষতা ও সৃজনশীলতা থাকতে হবে। নিজের বাড়ি থেকে এই কম টাকায় দর্জির ব্যবসা করতে পারেন। ক্রেতার বাড়ি গিয়ে ডিজাইন আর মাপ নিয়ে এসে বাড়িতে বসে বানিয়ে পৌঁছে দিয়ে আসুন ক্রেতার বাড়িতে। তবে অনলাইনে বহু নতুন নতুন ডিজাইন পাওয়া যায়। সেখান থেকে নিজের পছন্দ মতো ক্যাটালগ তৈরি করে নিন বা শিখতে পারেন।

ইউটিউব চ্যানেল থেকে আয়

আপনি চাইলে ঘরে বসেই আয় করার আরও একটি সহজ উপায় ইউটিউব চ্যানেল। সেখানে আপনি শিক্ষামূলক থেকে রান্না শেখানো, লাইফ হ্যাকস্ থেকে বেড়ানো ইত্যাদি ভিডিও আপলোড করতে পারেন। চ্যানেলের ফলোয়ার বাড়াতে নিয়মিত ভিডিও আপলোড করতে হবে। স্মার্টফোনে ভিডিও তুলেও আপলোড করতে পারেন । তবে শব্দ ও ছবির গুণমান ভাল হওয়া জরুরি। ভিডিওর ভিউ ভালো হলে বিজ্ঞাপন বাবদ টাকা আয় করতে পারবেন।

আজ এ পযন্ত,  আরো অন্য কোন টফিক নিয়ে দেখো হবে। আরো তথ্য জানতে আমাদের সাইটটি ভিজিট করুন এবং লাইক কমেন্ট শেয়ার করে সবাইকে দেখার সুযোগ করে দিন। কম টাকায় উৎপাদনমুখী ব্যবসা করার আইডিয়া

Comments

No comments yet. Why don’t you start the discussion?

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *